সাম্প্রতিক সংবাদ

বেসরকারি খাতকে পরিকল্পনা গ্রহণের পরামর্শ বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রীর

ডেস্ক রিপোর্ট : বস্ত্রখাতের উন্নয়ন এবং বিশ্ব বাজারে এগিয়ে যাওয়ার জন্য বেসরকারি খাতকে কর্মপরিকল্পনা গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম।প্রতিমন্ত্রী আজ বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাবৃন্দ ও এর অংশীদারদের মধ্যে এক মতবিনিময় সভায় এ পরামর্শ দেন।

ভারত সরকার আয়োজিত ভারতের গুজরাটের গান্ধিনগরে গত ৩০ জুন হতে ২ জুলাই ২০১৭ পর্যন্ত মেগা টেক্সটাইল মেলা- ‘টেক্সটাইল ইন্ডিয়া ২০১৭’ এ অংশগ্রহনের একটি অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্যই এই সভা অনুষ্ঠিত হয়।এ সময় বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: ফয়জুর রহমান চৌধুরী, অতিরিক্ত সচিব কৃষ্ণ ভট্টাচার্য্য, বিটিএমসি’র চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মাহবুব আহমেদ জাকারিয়া (বীর প্রতীক), বস্ত্র পরিদপ্তরের পরিচালক মো. ইসমাইল হোসেন, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন দপ্তর/সংস্থার প্রধানগণসহ মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, বিজিএমইএ’র সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম মান্নান (কচি), বিকেএমইএ, বিটিএমএ, বিটিটিএলএমইএ এবং বিজিএএমপিআইএ এর প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন।

বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘২০২১ সালের মধ্যে বস্ত্রখাতের অভিষ্ট লক্ষ্য অর্জন করতে হলে বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় এবং এর অংশীদারগণ যেমন বিজিএমইএ, বিকেএমইএ, বিটিএমএ, বিটিটিএলএমইএ এবং বিজিএএমপিআইএ-কে নিবিড়ভাবে একসাথে কাজ করতে হবে।
মির্জা আজম বলেন, ‘ভারতের টেক্সটাইল মেলার মাধ্যমে অর্জিত অভিজ্ঞতা নতুন করে ভাবার সুযোগ করে দিয়েছে। দেশের বস্ত্র খাতকে আরো প্রতিযোগিতা সক্ষম ও দক্ষ ভাবে গড়ে তোলার জন্য বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয় সব ধরনের সেবা দিতে প্রস্তুত’।
সভায় অংশীদারগণ উল্লেখ করেন, ২০২১ সালের মধ্যে বস্ত্রখাতের লক্ষ্য অর্জন করতে হলে এ খাতে বিনিয়োগ বৃদ্ধি ও সরকারের পক্ষ হতে অন্যান্য সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন।

ভারতের টেক্সটাইল মেলা ‘টেক্সটাইল ইন্ডিয়া-২০১৭’ এর অভিজ্ঞাতার আলোকে তাঁরা মত প্রকাশ করেন, আসন্ন শীত মৌসুমে বাংলাদেশেও টেক্সটাইল মেলা আয়োজনের উদ্যোগ গ্রহণ করা যেতে পারে।
উল্লেখ্য, গত ৩০ জুন হতে ২ জুলাই ২০১৭ পর্যন্ত গুজরাটের গান্ধিনগরে অনুষ্ঠিত মেলায় বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল এবং বাংলাদেশ গার্মেন্টস ম্যানুফ্যাকচারারর্স এন্ড এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশেন (বিজিএমইএ) বাংলাদেশ নীটওয়ার ম্যানুফ্যাকচারারর্স এসোসিয়েশেন (বিকেএমইএ), বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস্ এসোসিয়েশন (বিটিএমএ) এর সদস্যগণ অংশ গ্রহণ করেন।

বি/এস/এস/এন

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
shared on wplocker.com