সাম্প্রতিক সংবাদ

পোষাক খাতের অনিয়ম ‘ঘুষ’ লেনদেনে ধামাচাপা

garments

বিডি নীয়ালা নিউজ(১৪জানুয়ারি১৬)- অনলাইন প্রতিবেদনঃ ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) এক গবেষণায় উঠে এসেছে  তৈরি পোশাক শিল্পের নানা অনিয়ম ধামাচাপা দিতে ‘ঘুষ’ লেনদেনের তথ্য ।

দুর্নীতিবিরোধীএ সংস্থাটি বলছে, পোশাক খাতের সরবরাহ চক্রের (সাপ্লাই চেইন) তিনটি পর্যায়ে অন্তত ১৬টি ধাপে দুর্নীতি চিহ্নিত করতে পেরেছে তারা।

বৃহস্পতিবার সংস্থার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ‘তৈরি পোশাক খাতের সাপ্লাই চেইনের অনিয়ম ও দুর্নীতি মোকাবেলায় অংশীজনের করণীয়’ শীর্ষক এই গবেষণা প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়। প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন শাহজাদা এম আকরাম, নাজমুল হুদা মিনা ও নীনা শামসুন্নাহার।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ২০১৪ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৫ সালের এপ্রিল পর্যন্ত সংগ্রহ করা তথ্যের ভিত্তিতে এই গবেষণা করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘সাপ্লাই চেইনের কার্যাদেশ, উৎপাদন ও সরবরাহ- এই তিনটি পর্যায়েই দুর্নীতি বিদ্যমান।’

যে ১৬টি ধাপে দুর্নীতির তথ্য পাওয়ার কথা টিআইবি বলছে, সেগুলো হলো- ব্র্যান্ড/আমদানিকারকের সঙ্গে স্থানীয় এজেন্ট/বায়িং হাউজের যোগাযোগ, কমপ্লায়েন্ট কারখানার সঙ্গে যোগাযোগ, কার্যাদেশ প্রদান, মূল্য নির্ধারণ/ দর কষাকষি, স্যাম্পল করার নির্দেশ, মাস্টার এলসি-ব্যাক টু ব্যাক এলসি খোলা, উৎপাদনের কাঁচামাল/দ্রব্য ক্রয়/আমদানি, পণ্যের মান ও কমপ্লায়েন্স পরিদর্শন, প্রাক জাহাজীকরণ পর্যায়ের মান পরিদর্শন ও জাহাজীকরণ (এফওবি/সিএ্যান্ডএফ)।

প্রতিবেদনে উল্লেখ্য করা হয়, ‘পণ্যের মান, পরিমাণ ও কমপ্লায়েন্সের ঘাটতি ধামাচাপা দেওয়া হয় ঘুষের মাধ্যমে। অংশীজনের সুশাসন ও জবাবদিহিতাহীন এ ধরনের পরিবেশে সর্বোচ্চ মুনাফার জন্য ‘চাঁদাবাজি’ কৌশল হিসেবে ব্যবহৃত হয়। সাপ্লাই চেইনের পুরো প্রক্রিয়ায় অনিয়ম ও দুর্নীতি যেন নিয়মে পরিণত হয়েছে।’

ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘এ খাতে ৬০ শতাংশ অগ্রগতি হলেও তা বাড়াতে সবাইকে উদ্যোগী হতে হবে। অনিয়ম-দুর্নীতি রোধে কিছু পদক্ষেপ নিলে তৈরি পোশাক খাতের অগ্রগতি আরও বাড়বে।’

দেশের রফতানি আয়ের সবচেয়ে বড় এ খাত সম্পর্কে তিনি বলেন, ২০১৩ সালে এক গবেষণায় এ খাতের ৬৩টি বিষয়ে সুশাসনের ঘাটতি চিহ্নিত করা হয়েছিল। সেসব বিষয়ে সরকার, মালিক ও ক্রেতাদের নেওয়া ১০২টি উদ্যোগের ফলে সার্বিক এই অগ্রগতি হয়েছে।

গবেষণায় ‘গুণগত তথ্য সংগ্রহের পদ্ধতি’ ব্যবহার করায় পরিসংখ্যানগত কোনো অনিয়মের তথ্য দেওয়া যাচ্ছে না বলেও জানান তিনি।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

shared on wplocker.com