সাম্প্রতিক সংবাদ

বিএনপি সমর্থিতদের কিল-ঘুষিতে হাসপাতালে আ’লীগপন্থি আইনজীবী

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক পদ দখলের অভিযোগ তুলে এর প্রতিবাদে বিক্ষোভ করেছেন বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্যরা। এসময় বিএনপি ও আওয়ামী লীগ সমর্থিত আইনজীবীদের মধ্যে মারামারি, হাতাহাতি ও হট্টগোলের ঘটনা ঘটেছে।

দুই পক্ষের মারামারিতে বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ সমর্থিত আইনজীবী অ্যাডভোকেট এনআই প্রামাণিক গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় পরে তাকে রাজধানীর নিউরো সায়েন্স হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

বুধবার (১৮ মে) দুপুর ২টার দিকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদকের কক্ষের সামনে এ ঘটনা ঘটে। সেখানে প্রায় আধা ঘণ্টা ধরে দুই পক্ষের মধ্যে ধস্তাধস্তি চলে।

এসময় আইনজীবী সমিতির সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুন নুর দুলালের নেমপ্লেট ভাংচুরের ঘটনা ঘটে। সম্পাদকের কক্ষের দরজাও কিছু সময়ের জন্য বন্ধ করে দেয় বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীরা। আওয়ামীপন্থি আইনজীবী এনআই প্রামাণিকের শরীর থেকে রক্ত ঝরতে দেখা যায়। এছাড়া উভয়পক্ষের বেশ কয়েকজন আইনজীবী আহত হয়েছেন বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

দুপুর আড়াইটার পরে বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীরা স্লোগান দিয়ে ঘটনাস্থলে থেকে চলে যান। এসময় আওয়ামী লীগ সমর্থিত আইনজীবীরা সম্পাদকের কক্ষের সামনে অবস্থান নেন।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক গাজী মো. কামরুল ইসলাম সজল বলেন, ‘জয়বাংলা শ্লোগান দিয়ে তারা (আওয়ামী লীগপন্থি) আমাদের শান্তিপূর্ণ মিছিলে হামলা করেছেন। আমাদের সাহসী নেতাকর্মীদের প্রতিরোধের মুখে তারা পিছু হটতে বাধ্য হন। স্বঘোষিত সম্পাদক স্বেচ্ছায় বিদায় না নেওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

এর আগে দুপুর ১টার দিকে সুপ্রিম কোর্ট বার ভবনের সামনে প্রতিবাদ সভা করে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম। এতে কয়েকশ আইনজীবী অংশ নেন। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের সদস্যসচিব ফজলুর রহমান।

এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান মীর মোহাম্মদ নাছির উদ্দিন। প্রতিবাদ সভা শেষে বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীরা সুপ্রিম কোর্ট বার সম্পাদকের কক্ষের সামনে যান।

গত ১৫ ও ১৬ মার্চ সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনের ভোটগ্রহণ করা হয়। গণনা করা হয় গত ১৭ মার্চ। বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীদের অভিযোগ, ভোট গণনায় জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সমর্থিত প্যানেল থেকে সম্পাদক মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল, কোষাধ্যক্ষ, সহ-সম্পাদক দুজন এবং চারজন সদস্যসহ মোট আটজন জয়লাভ করেন।

বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ সমর্থিত প্যানেল থেকে সভাপতি দুটি সহ-সভাপতি এবং তিনজন সদস্যসহ মোট ছয়টি পদে জয়লাভ করে। ভোটগণনা শেষ হওয়ার পর আওয়ামী লীগপন্থি সম্পাদক প্রার্থী আব্দুন নুর দুলাল ভোট পুনর্গণনার জন্য আবেদন করেন। ওই রাতে নির্বাচন কমিশনের আহ্বায়ক পদত্যাগ করেন। এজন্য দীর্ঘদিন আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা হয়নি।

বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের অভিযোগ, মেয়াদোত্তীর্ণ কার্যকরী (২০২১-২২) কমিটির আওয়ামী লীগপন্থি সাতজন সদস্য অবৈধভাবে গত ১২ এপ্রিল নির্বাচন সাব-কমিটি গঠন করেন। অথচ তাদের মেয়াদ ১১ এপ্রিল শেষ হয়েছে। এ সাব-কমিটি ২৭ এপ্রিল অবৈধভাবে জোরপূর্বক সমিতির কনফারেন্স রুমের তালা ভেঙে আব্দুন নুর দুলালকে সম্পাদক হিসেবে ঘোষণা করেছে।

Jag/N

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
shared on wplocker.com