সাম্প্রতিক সংবাদ

ছাত্রলীগ থেকে বহিস্কার সিরাজগঞ্জে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় এক ছাত্রীকে পেটালো ছাত্রলীগ নেতা

সিরাজগঞ্জ থেকে,মারুফ সরকার:সিরাজগঞ্জ কলেজে ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার উপ-প্রচার সম্পাদক সাদ্দাম হোসেনকে বহিস্কার করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ। বুধবার রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুল রহমান সোহাগ ও সাধারন সম্পাদক এস,এম জাকির হোসেনের সাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি মাধ্যামে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তাকে বহিস্কারের পরিপেক্ষিতে সিরাজগঞ্জ সরকারি কলেজের সকল ছাত্র-ছাত্রী ও অভিভাবকসহ সিরাজগঞ্জের সকল মানুষ খুব খুশি। উল্লেখ্য,সিরাজগঞ্জ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে যৌন হয়রানির প্রতিবাদ করায় এক ছাত্রীকে সহপাঠীদের সামনে পেটালেন সদর উপজেলা ছাত্রলীগের উপ-প্রচার সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন। বুধবার দুপুরে কলেজ ক্যাম্পাসে এঘটনা ঘটে। যৌন হয়রানিকারী সাদ্দাম হোসেন কলেজ সংলগ্ন দত্তবাড়ি মহল্লার  আব্দুল মজিদের ছেলে।

ছাত্রীর সহপাঠীরা জানায়, বুধবার দুপুরে কলেজে ছাত্রী নুসরাত অন্যান্য শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বিএনসিসি’র পোশাক পড়ে প্যারেড করছিলো। এ সময় বখাটে সাদ্দাম মেয়েটিকে যৌন হয়রানিমূলক কথা বলে উত্ত্যক্ত করতে থাকে। এক পর্যায়ে মেয়েটি প্রতিবাদ করলে সাদ্দাম বেধড়ক মারপিট শুরু করে। এতে তার নাক-মুখ রক্তাক্ত জখম হয় এবং তার চশমা ভেঙ্গে যায়। এ ঘটনা জানতে পেরে ছাত্র-ছাত্রীরা কলেজ ক্যাম্পাসে তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ শুরু করে। খবর পেয়ে পুলিশ বখাটেকে গ্রেফতারের আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে। পরে, বিকালে সাদ্দামকে তার নিজ এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ। এ ব্যাপারে কলেজ কর্তৃপক্ষ বুধবার রাতেই একটি মামলা দায়ের করেছেন। কলেজ শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি শেখ খালিদ সাইফুল্লাহ  সাদি বলেন, সাদ্দাম হোসেন একাধিকার সিরাজগঞ্জ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের বেশ কয়েকজন ছাত্রীকে যৌন হয়রানি করেছে।

তাকে নিয়ে ইতিপূর্বে বেশ কয়েকবার সালিশও হয়েছে। এব্যাপারে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকিরুল ইসলাম লিমন জানান, এঘটনায় বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির এক জরুরী সভায় তাকে বহিস্কার করা হয়েছে।সিরাজগঞ্জ সদর থানার ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম এতথ্য নিশ্চিত করে জানান, কলেজ কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অভিযোগ পাবার পরই ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করা হয়। পরে, বখাটে সাদ্দামকে তার নিজ এলাকা থেকে আটক করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতে হাজির করা হলে বিজ্ঞ বিচারক তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক এসএম মনোয়ার হোসেন ঘটনাটি খুবই ন্যাক্কারজনক উল্লেখ করে এর তীব্র নিন্দা জানান এবং আটক বখাটের কঠোর শাস্তি দাবি করেন।

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
shared on wplocker.com