সাম্প্রতিক সংবাদ

 মৃত ও প্রবাসীরাও ভোট দিয়েছেন যে কেন্দ্রে!

up-nirrbachon

বিডি নীয়ালা নিউজ(২৮ই এপ্রিল১৬)-অনলাইন প্রতিবেদনঃ  ইউপি নির্বাচনে ফরিদগঞ্জের একটি ভোটকেন্দ্রে শতভাগ ভোট গ্রহণ হয়েছে। মৃত ও প্রবাসীরাও ভোট দিয়েছেন এ কেন্দ্রে।

শতভাগ ভোটগ্রহণের ওই কেন্দ্রের নাম পশ্চিম চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। ওই কেন্দ্রের ১১৪০ ভোটারের মধ্যে ১১৪০ জন ভোটারই ২৩ এপ্রিল অনুষ্ঠিত নির্বাচনের দিন ভোট দেন।

রিটার্নিং অফিসার স্বাক্ষরিত ফলাফলে দেখা যায় শতভাগ ভোটার ফরিদগঞ্জ উপজেলার গোবিন্দপুর উত্তর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পশ্চিম চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন। তাহলে কী ওই কেন্দ্রের ভোটারদের মধ্যে মৃত, প্রবাসে থাকা এবং স্থানান্তর হওয়া ব্যক্তিরাও ভোট দিয়েছেন! ১১৪০ জন ভোটারের মধ্যে ৫৬৬ জন নারী এবং ৫৭৪ জন পুরুষ।

ভোট প্রদানের এ হিসাব মিলাতে পারেছেন না পরাজিত এক মেম্বার প্রার্থীও। তাই তিনি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানা গেছে। এদিকে এ অস্বাভাবিক ভোটের অবস্থা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।

জানা গেছে, ৭নং ওয়ার্ডের ২টি কেন্দ্রের মধ্যে পশ্চিম চাঁদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৫৬৬ জন নারী ও ৫৭৪ জন পুরুষ নিয়ে মোট ১১৪০ ভোটারের মধ্যে ১১৪০ জন ভোটারই ভোট প্রদান করেছেন বলে ফলাফল সিটে দেখানো হয়েছে। এর মধ্যে ১০৯৬টি বৈধ ভোট এবং ৪৪টি অবৈধ বা বাতিলকৃত।

ওই কেন্দ্রের সাধারণ মেম্বার প্রার্থীদের ফলাফলে দেখানো হয়েছে আপেল প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ৩১ ভোট, মোরগ প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ১০৬১ ভোট এবং ফুটবল প্রতীকের প্রার্থী পেয়েছেন ৪ ভোট। এছাড়া ৪৪টি ভোট বাতিল বা অবৈধ দেখানো হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ১১৪০ জন পুরুষ ও নারী ভোটারের মধ্যে মুরাদ আলী বেপারী (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৬৯২), লুৎফুর রহমান মিজি (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৬৭০), আনোয়ার উল্যা (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৭১১) সহ ১৮ জন পুরুষ ও মাছুমা খাতুন (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৬২৭), লতুফা খাতুন (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৬২৫) সহ ৪ জন নারী ভোটার মারা যান এবং মোস্তফা মিজি (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৬৪৭), মো. সুমন (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৭৭৮), তোফায়েল আহাম্মদ (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৪৯৬২) ও জাকির খান (আইডি নং-১৩১৫৮৫৮৪৫১২৭) সহ ৭০ জন চাকরিজনিত কারণে প্রবাসে থাকেন বা গ্রামে অবস্থান করেন না।

মোট ৯২ জন ভোটার অনুপস্থিত থাকলেও কীভাবে ওই কেন্দ্রে শতভাগ ভোট প্রয়োগ দেখানো হয়েছে তা বোধগম্য নয়। ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্বজ্ঞানহীনতার পরিচয় না সুষ্ঠু নির্বাচনের চিত্র এটি। ভোটের এ অবস্থা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে।

এ বিষয় জানতে ওই কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা প্রিজাইডিং অফিসার মো. মিজানুর রহমানের কাছে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তিনি ফোনে কথা বলতে রাজি হননি।

পরে এ ব্যাপারে রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা কৃষি অফিসার আবু তাহের জানান, প্রিজাইডিং অফিসার তাদের কাছে যে ফলাফল সিট জমা দিয়েছেন সে অনুযায়ী সর্বাধিক প্রাপ্ত প্রার্থীকেই বেসরকারিভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়েছে।

 

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
shared on wplocker.com