সাম্প্রতিক সংবাদ

মার্কিন প্রশাসনে ইসরায়েল-এর প্রভাব এবং আরব দেশসমুহের সাথে সম্পর্ক।

……………………………. মোঃ আব্দুল মান্নান

ইহুদী রাষ্ট্র ইসরায়েল ইংগ-মার্কিন পরিকল্পনায় অবৈধভাবে মুসলিম দেশ ফিলিস্তিনের ওপর প্রতিষ্ঠিত হয় সেই ১৯৪৮ সালে। তখন থেকেই এ রাষ্ট্র- টি শুধু ফিলিস্তিনের মুসলমানদের উপরই নয় পার্শ্ববর্তী মুসলিম দেশসমুহের ওপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে আসছে। ফিলিস্তিনের এমন কোনজনপদ নেই যেখানে মুসলিমদের রক্তে সেখানকার মাটি রঞ্জিত হয়নি। ইহুদীদের হামলায় ছোট ছোট শিশুরাও প্রাণে রক্ষা পায়নি এবং তা আজ অবদি চলমান রয়েছে।অবস্থা দৃষ্টে এমনি মনে হয় মুসলমান হত্যা করতে পারাটাই ইহুদীদের গর্বের বিষয়।প্রতিনিয়ত ইহুদীদের দ্বারা ফিলিস্তিনে মুসলিমদের জান, মাল ও নারীদের ইজ্জত লূন্ঠিত হচ্ছে এবং বিদ্ধস্ত হচ্ছে মুসলিমদের বসত বাড়ী। নিজ দেশে থেকেও অকারণে নির্যাতনের শিকার হয়ে বিতাড়িত হচ্ছে মুসলমানরা।বিশ্ব বিবেক এখানে নিরব। দূঃখের সাথে বলতে হয়, মুসলমানদের মারতে ইহুদীরা যে সব অস্ত্র ব্যবহার করছে এগুলো সবই হচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্টের দেয়া। শুধু তাই নয় আর্থিকভাবে এবং সামরিকভাবে আইনবাদী ইহুদী রাষ্ট্র ইসরায়েলকে শক্তিশালী করার জন্য আমেরিকা প্রতি বছর বিলিয়ন- বিলিয়ন ডলার সাহায্য দিচ্ছে ইসরায়েলকে। আমেরিকার প্রত্যক্ষ মদদ ছাড়া কখনই এ ইহুদী রাষ্ট্র বিশ্বের বিশাল মুসলিম জনগোষ্টিকে হত্যা করার দুঃসা্হস পেত না। ভাবতে অবাক লাগে মানবতা, মানবাধিকার ও স্বাধীনতাসহ গণতন্ত্রের দাবিদার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র শুধুমাত্র আন্তর্জাতিক-ভাবে তাদের প্রভাব টিকিয়ে রাখতেই কিভাবে ইস্রায়েল কে প্রকাশ্যে এ রকম সমর্থন করতে পারে?

অনেক অন্যায় গোপন থাকে না। সময়ের ব্যবধানে তা প্রকাশ পেতে বাধ্য। এরই আলোকে ২০০৩ সালের ৯ মে The Daily star এর সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন Star Weekend Magazine-এর ৩য় পাতায় প্রকাশিত Chintito এর কলামে লেখা শিরোনামে ছিল Curse Israel but Pray why? লেখক এখানে বলেছেন,” গত চল্লিশ বছরে আমরা আমেরিকা বাসীরা ইসরায়েলদের ঘৃণা করে আসছি এবং ইসরায়েলকে অভিশাপ দিয়ে আসছি।আমরা ইসরায়েলকে বিবেচনা করে আসছি যন্ত্রণাদায়ক কাটা হিসাবে।কেবল মাত্র ইয়াংকিদেরবড় ভাইসূলভ সমর্থনের কারণে আমাদের কাছে ইসরায়েল পরিচিত। কিন্ত আমরা কি এ বিষয়ে পর্যাপ্ত জানি? আমরাএকা নই।খুব কম আমেরিকান- রা সামান্যই জানে, তাদেরকে কেন ইসরায়েলকে সমর্থন করতে হবে বা কেন সমর্থন করতে হবে না। Chintito তার কলামে Israel we bless thee এ শিরোনামে Mark Glenn এর লেখা যে প্রবন্ধটি হুবহু প্রকাশ করেছে তারই অনুবাদ, যাতে অনুবাদক লিখেছেন, ” আজ শহরের মাঝে গাড়ি চালিয়ে যাচ্ছিলাম, আমার সামনে ছিল একটি ছোট ভ্যান, ভ্যানের পিছনে একটি বড় ষ্টিকার দেখে আমি বেশ চিন্তিত হয়ে পরি। ষ্টিকারের ঠিক মাঝখানে ইসরায়েলের পতাকা, তার নিচে,”বুক অব জেনেসিনে”এর একটি উক্তি, ”আমি তাদের সৌভাগ্য দান করি, যারা নিজেদের মহিমান্বিত করে।” পারিপার্শ্বিক বাস্তবতায় আমাদের নিজস্ব কিছু কারণেই আমি ইসরায়েলের পক্ষে বলব, প্রশংসা করব এবং অনুগ্রহ চাইবো। কেননা ইস্রায়েল মধ্যপ্রাচ্যে আমাদের একমাত্র সহযোগি, যে কোন অবস্থায় তারা আমাদের প্রতি বিশ্বস্ত। কিন্ত আমি শতভাগ নিশ্চিত অধিকাংশ আমেরিকান জানেনা, ইস্রায়েল আমেরিকার কোন ধরণেরবন্ধু। গত ৪০ বছরে আমার স্বদেশীদের কাছ থেকে চারশত কোটি আমেরিকান ডলার কৌশলে ভীতি প্রদর্শনের মাধ্যমে আদায় করার জন্য আমরা ইসরায়েলকে আশীর্বাদ করি।আমাদের অত্যাধুনিক স্পর্শকাতর অস্ত্রপ্রযুক্তি নিজেদের দখলে নেয়া এবং আমেরিকান স্বত্বাধিকারী কোন ধরনের আর্থিক মূল্য প্রদান ছাড়াই এসব প্রযুক্তি নিজস্ব প্রয়োজনে চুরিকরার জন্য আমরা আমেরিকানরা তোমাদের আশীর্বাদ করি।আমাদেরউচ্চ কারিগরি সমর প্রযুক্তি গ্রহন করে আমাদের শত্রু, রাশিয়া ও চীনের কাছে বিক্রি করার জন্য আমরা তোমাদের আশীর্বাদ করি।

আমাদের যুদ্ধ জাহাজ এস এম লিবার্টকে ডুবিয়ে দিতে ক্রমাগত আঘাত হানা হয়েছিল, যাতে ৬দিনের যুদ্ধে সিনাই মরুভূমিতে মিসরীয় সেনাদের হত্যার ভিতরযে যুদ্ধাপরাধ সংঘটিত হয় বাকী বিশ্ব যেন তা যুক্তরাষ্টের সেনাদেরমাধ্যমে জানতে না পারে এ জন্য আমরা তোমাদের আশীর্বাদ করি।ইউ এস লিবার্টির ৩৫ জন নাবিককে হত্যা এবং ১৭০ জনকে আহত করার জন্যও আমরা তোমাদের আশীর্বাদ করি। এ ঘটনা আড়াল করার জন্যযুক্তরাষ্ট্র সরকারকে প্রভাবিত করা এবং হতাহতের পরিবারসমুহকে তথা আমেরিকার জনগণকে যাতে কোন ক্ষতিপূরণ দিতে না হয় এজন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি।মিসরে এজেন্ট পাঠিয়ে আমেরিকার সম্পত্তি ধবংস করা যাতে আরবদের ওপর দোষ চাপানো যায়, যা-‘লেভন এ ফেয়ার,” নামে পরিচিত, এ জন্য ও আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। প্রেসিডেন্ট রিগানের সময় লিবিয়ায় পাঠানো এজেন্টদের মাধ্যমে আরবী ভাষায় বেতার বার্তা সম্প্রচার করা। এ বার্তা এমন ভাবে সাজানো হয়, যেন তা সন্ত্রাসীদের দ্বারা পরিকল্পনা কেন্দ্র থেকে পাঠানো মনে হয়। ফলে যুক্ত্ররাষ্ট্র গাদ্দাফীর বিরুদ্ধে সামরিক হামলা চালায়, এ জন্যও আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। লেবাননে মার্কিন নৌ ঘাটিতে আক্রমনের পরিকল্পনার কথা ইসলামী বিশ্ব জুড়ে ছড়িয়ে তোমারি গুপ্তচরদের মাধ্যমে আগেইজেনেছিল কিন্ত আরবদের বিরুদ্ধে তোমার স্বার্থের কারণে স্বপ্রবিত্ত হয়ে আমাদের সতর্ক করে দাওনি এ জন্য তোমাকে আশীর্বাদ করি। এমন কি তোমার পরজীবি উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা সম্পর্কিত গোপন তথ্য সংগ্রহ করতে ”জোনাথন পোলার্ড” নামে এক বেত নভূক্ত মার্কিনীকে নিয়োগ করার জন্য তোমাকে আশীর্বাদ করি। বিগত ৪০ বছরে ক্রমাগত ভাবে নির্মমতা ও হত্যাযজ্ঞের মাধ্যমে যে অবস্থা তোমারা সৃষ্টি করতে তার অবসান কল্পে তোমাদের এবং ফিলিস্তিনি জনগণেরপক্ষ থেকে নেয়া সংগতিপূর্ণ শান্তিপরিকল্পনা বান চাল করতে প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টনকে বেকায়দায় ফেলার উদ্দেশ্যে তোমাদের এক গোয়েন্দাকর্মী মণিকা লিউনিস্কিকে প্রেরণ করার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি।আরব প্রতিবেশী দের সাথে প্রতিটি চুক্তি ভংগের জন্য তাদের ভূমি জবর দখল করা, অধিবাসীদেরবিতাড়িত করা, হত্যা করা এবং তাদের সাথে পশুরমত আচরণ করার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি।

আরব প্রতিবেশিদের সাথে প্রতিটি চুক্তি ভংগের জন্য তাদের ভূমি জবরদখল করা, অধিবাসীদের বিতাড়িত করা, হত্যা করা এবং তাদের সাথে পশুর মত আচরণ করার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। প্রথম বুশ প্রশাসনে তোমাদের এজেন্টদের ব্যবহার করে প্রথম উপসাগরীয় যুদ্ধে আমাদের জড়িয়ে ফেলার জন্য আমাদের সেনাদের সে সময়ে জীবানু অস্ত্র সংশ্লিষ্ট যে সংকট মোকাবেলা করতে হয়েছিল যা-”গলফ ওয়ার সিন ড্রম” নামে পরিচিত তারজন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। ১১ সেপ্টেম্বর এ দেশে তোমার ভূমিকার জন্য এবং যুক্তরাষ্ট্র সরকারকে অসদুদ্দেশ্যে চাপ দিয়ে ও প্ররোচিত করে উক্ত ঘটনায় গ্রেফতারকৃত একশত কিংবা তারও বেশি এজেন্টকে ইসরায়েলে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। ১১সেপ্টেম্বরএর আক্রমণের ঘটনায় তোমাদের সংশ্লিষ্টতার খবর প্রচারে বাধা দেয়া এবং তদন্তের কাজ ভূল পথে পরিচালনা করতে প্রভাবিত করার জন্য আমরা আমেরিকাবাসী তোমাকে আশীর্বাদ করি। লেফটিন্যান্ট কর্ণেল, ”ফিলিফ জ্যাক কে” যুক্তরাষ্ট্রের সেনা-বাহিনীর অস্ত্র গবেষণাগারে পাঠিয়ে ”এন্থ্রাক্স” জীবানু চুরির খবর আমাদের ডাক ব্যবস্থার মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে এদেশের কয়েকজন নাগরিক হত্যার দায়ভার আরবদেরওপর চাপিয়ে দেয়ার জন্য তোমাকে আশীর্বাদ করি। যুক্তরাষ্ট্র সরকারকেতোমাদের এজেন্ট যেমন, রামফেল্ড-উল ফ উইজং, পার্লে, আব্রাম এবং অন্যান্যদের ব্যবহার করে মধ্যপ্রাচ্যে যুদ্ধের সূচনা করে গত ৫০ বছ র যাবত যে সব শত্রু তুমি সৃষ্টি করেছ তাদেরবশীভূত করার প্রচেষ্টার জন্য তোমাকে আশীর্বাদ করি। তোমার এজেন্টদের ব্যবহার করে গণমাধ্যম গুলোতে ক্রমাগত অনাকাংখিত বিবৃতিতে যুদ্ধ বিষয়ে অবিরত মিথ্যা প্রচার করে যৌক্তিক তা প্রমান করা এবং আসল কারণ আড়াল করার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। খ্রীষ্টিয় সম্প্রদায়ে তোমার এজেন্ট, ফলওয়েল, গ্রাহাম, সগটে এবং অন্যান্যদের ব্যবহার করে তাদের মাধ্যমে ইশ্বরের পছন্দের সম্প্রদায় জাতীয় গুণকীর্তন জোগাড় করা অধিকন্ত তোমার আসল চেহারা কি? তোমরা কি করছ এবং তোমরা আসলে কি করতে চাও এ বিষয়ে আমেরিকান জনগণকে অন্ধকারে রাখার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। লিম্বার, নিড্ডি, হ্যানিটি, বেক ও স্যাভেজের মত বেতন ভূক্ত মিথ্যাবাদীদের সামনের সারিতে এগিয়ে দিয়ে তোমাকে সমর্থনের মাধ্যমে মার্কিনীদের বিপদগামী করার জন্য তোমাকে আশীর্বাদ করি।আমেরিকাকে আক্রমণকারী দেশ হিসাবে ব্যবহার করে তার সন্তানদের পরবর্তি যুদ্ধে পাঠিয়ে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়ার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি।

গণ মাধ্যমে তোমার প্রভাব ব্যবহার করে যুদ্ধে উভয় পক্ষের হতাহতের সঠিক পরিসংখ্যান গোপন করার জন্য আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। আমাদের বিরুদ্ধে আরবদের শত্রু বানিয়ে শুধু নয় অধিকন্ত সে সবজাতি, যাদের সাথে শতাব্দী ব্যাপী আমাদের বন্ধুত্ব ছিল তাদের কাছ থেকে সফ্লভাবে আমাদেরকে বিচ্ছিন্ন করে রাখার জন্য আম রা তোমাকে তোমাকে আশীর্বাদ করি। পরিশেষে তোমার প্রভাব ব্যবহার করে পর্ণগ্রাফি এবং মিথ্যার জোয়ার আমাদের গণ-মাধ্যমে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে লাগিয়ে দিয়ে সেই সাথে আমাদের সমাজ, আমাদের ইতিহাস, ধর্ম-সংস্কৃতিকে স্থায়ীভাবে হেয় প্রতিপন্ন করে জাতি, গোষ্ঠী, নারী পূরুষ ভেদে আমাদের জাতিকে বিভক্ত করা এবংতোমাদের হীন নৈতিকতা কার্যত আমেরিকার সমাজটাকেই করে দিয়েছ একদা মহান একটি জাতিকে ক্ষয়মান পচা, দূর্গন্ধযুক্ত মরালাশে পরিনত করার প্রয়াসের কারনে আমাদের বন্ধু ওহে ইসরায়েল আমরা তোমাকে আশীর্বাদ করি। এ ঘটনাগুলো আমেরিকার লেখক, বুদ্ধিজীবী ও সত্য মানুষের নজরে আসলেও সেদেশের সরকার বা প্রশাসনের নজরে আছে কি না তানিয়ে তারাই ভাববে। কিন্ত সে দেশেরবুদ্ধিজীবী, লেখক ও সত্য মানুষের ভাবনায় এসেছে এই ইসরায়েল ইহুদী রাষ্ট্রটি আমেরিকার জন্য এখন কি ভয়ংকর অবস্থা নিয়ে আস তে পারে।যদিও আমেরিকা এখনও মধ্যপ্রাচ্য থেকে শুরু করে বিশ্বের কোন খানেই তাদের সম্প্রসারনবাদ-সাম্রাজ্যবাদী কর্মকান্ড থেকে থেমে নেই । বর্তমান ফিলিস্তিন ইস্রায়েল যুদ্ধেও আমেরিকা ইসরায়েলকে অস্ত্র বিক্রির প্রস্তাব অনুমোদন দিয়ে ও ইসরায়েলকে সমর্থন করে এটাই প্রমান করেছে যে শয়তান ইসরায়েল ইহুদীবাদী রাষ্ট্রটি সাম্রাজ্য -বাদী আমেরিকার মগজ এমনিভাবে ধোলাই করেছে যে, তাদের প্রকৃত বন্ধু হিসাবে ইসরায়েল ইহুদী রাষ্ট্র ছাড়া আর কাউকে ভাবতে পারে না। যা বর্ত্মান বিশ্বকে আর একটি বিশ্ব যুদ্ধের দিকে ঠেলে দেয়ার দ্বার প্রান্তে এনে দিয়েছে এবং যুদ্ধ বাধলে তা বিশ্বের অস্তিত্বকে সংকটে ফেলতে পারে।

লেখক: কলামিস্ট, সাংবাদিক ও সাহিত্যিক

Facebooktwitterredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
shared on wplocker.com