সাম্প্রতিক সংবাদ

আতলেতিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে কোয়ার্টার-ফাইনালে ইউভেন্তুস


ডেস্ক স্পোর্টসঃ ম্যাচের শুরুতে দারুণ এক হেডে পথ দেখালেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে বাড়ালেন আশা আর শেষ দিকে গড়ে দিলেন ব্যবধান। পর্তুগিজ তারকার অসাধারণ এক হ্যাটট্রিকে আতলেতিকো মাদ্রিদকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার-ফাইনালের টিকেট পেল ইউভেন্তুস।

ইউভেন্তুস স্টেডিয়ামে মঙ্গলবার রাতে শেষ ষোলোর ফিরতি পর্বে ৩-০ গোলে জিতে দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে পরের রাউন্ডে উঠলো ইতালিয়ান চ্যাম্পিয়নরা। প্রথম লেগে ঘরের মাঠে ২-০ গোলে জিতেছিল স্পেনের দলটি।

পুরো ম্যাচে বল দখলের পাশাপাশি আক্রমণেও আধিপত্য করা ইউভেন্তুস গোলের উদ্দেশে মোট ১৬টি শট নেয়, যার চারটি ছিল লক্ষ্যে। অন্যদিকে ঘর সামলাতে ব্যস্ত আতলেতিকো পাঁচটি শট নিলেও তার একটিও লক্ষ্যে রাখতে পারেনি।

ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া ইউভেন্তুসের জর্জো কিয়েল্লিনি ম্যাচের পঞ্চম মিনিটেই জটলার মধ্যে বল পেয়ে জালে পাঠিয়েছিলেন। কিন্তু তার আগে শট নিতে গিয়ে রোনালদোর পা গোলরক্ষকের হাতে আঘাত করলে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে ফাউলের বাঁশি বাজান রেফারি।

একচেটিয়া চাপ ধরে রাখা ইউভেন্তুসকে ২৭তম মিনিটে এগিয়ে দেন রোনালদো। বাঁ দিক থেকে ফেদেরিকো বের্নারদেস্কির দূরের পোস্টে বাড়ানো ক্রসে লাফিয়ে নেওয়া হেডে বল জালে পাঠান পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড।

৩১তম মিনিটে ইতালিয়ান ফরোয়ার্ড বের্নারদেস্কির ফ্রি-কিকে বল ক্রসবার ঘেঁষে বাইরে চলে গেলে সে যাত্রায় বেঁচে যায় অতিথিরা। খানিক পর তার বাইসাইকেল কিকও হয় লক্ষ্যভ্রষ্ট। বিরতির ঠিক আগে রোনালদোর হেডও পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধের চতুর্থ মিনিটে আরেকটি দারুণ হেডে দলকে সমতায় ফেরান রোনালদো। তার লাফিয়ে নেওয়া হেড ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়েছিলেন ইয়ান ওবলাক; কিন্তু তার আগেই বল গোললাইন পেরিয়ে যায়। গোললাইন প্রযুক্তির সাহায্যে গোলের বাঁশি বাজান রেফারি। দুই লেগ মিলিয়ে স্কোরলাইন হয় ২-২।

নির্ধারিত সময় শেষের ১০ মিনিট আগে মানজুকিচকে বসিয়ে মোইজে কিনকে নামান আল্লেগ্রি। মাঠে নামার দুই মিনিটের মাথায় প্রতিপক্ষের ভুলে দলকে এগিয়ে নেওয়ার সুযোগ পেয়েছিলেন তরুণ ইতালিয়ান এই ফরোয়ার্ড। কিন্তু তার কোনাকুনি শট পোস্ট ঘেঁষে বাইরে চলে যায়।

তবে খানিক পরেই দলকে উচ্ছ্বাসে ভাসান রোনালদো। ৮৬তম মিনিটে সফল স্পট কিকে হ্যাটট্রিক পূরণের পাশাপাশি পার্থক্য গড়ে দেন সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলার। বাঁ দিক দিয়ে ডি-বক্সে ঢোকা বের্নারদেস্কিকে পেছন থেকে আনহেল কোররেয়া ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিলে পেনাল্টিটি পায় ইউভেন্তুস।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এবারের আসরে এই নিয়ে চার গোল করলেন রোনালদো। প্রতিযোগিতার ইতিহাসে তার মোট গোল হলো ১২৪। আর আতলেতিকোর বিপক্ষে এই নিয়ে ৩২ ম্যাচে ২৫টি গোল করলেন রোনালদো। আগের ২২টি করেছিলেন সাবেক ক্লাব রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে।

ফিলিপ্পো ইনজাগি ও আলেস্সান্দ্রো দেল পিয়েরোর পর ইউভেন্তুসের তৃতীয় ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের নকআউট পর্বে হ্যাটট্রিক করার কীর্তি গড়লেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার রোনালদো।

একই সময়ে শুরু হওয়া অন্য ম্যাচে শালকেকে ৭-০ গোলে উড়িয়ে দুই লেগ মিলিয়ে ১০-২ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে শেষ আটে উঠেছে ম্যানচেস্টার সিটি।

P/B/A/N.

Twitter

Facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

Scroll To Top
Social Media Auto Publish Powered By : XYZScripts.com
shared on wplocker.com